গোঁফ কেটে ছদ্মবেশ নিয়েও সিমান্ত পাড়ি দিতে পারিনি সাহেদ

করোনার নমুনা পরীক্ষার নামে প্রতারণা আর জালিয়াতির মামলায় রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহেদ ওরফে শাহেদ করিমকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

এক সপ্তাহ ধরে পলাতক ছদ্মবেশি শাহেদকে বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্তবর্তী কোমরপুর গ্রামের লবঙ্গবতী নদীর তীর থেকে একটি গুলিভর্তি পিস্তলসহ গ্রেপ্তার করা হয়।

ভারতে পালিয়ে যাওয়ার আগে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ফাঁকি দিতে ছদ্মবেশ নিয়েও তার শেষ রক্ষা হয়নি।

র‌্যাব-৭ এর সাতক্ষীরা ক্যাম্পের এক কর্মকর্তা সাতক্ষীরায় সাংবাদিকদের বলেন, গ্রেপ্তার এড়াতে শাহেদ ছদ্মবেশ ধারণ করে। বোরকা পরে একটি নৌকায় উঠার চেষ্টা করছিলেন শাহেদ। তখনই তাকে আটক করা হয়।

তিনি বলেন, নৌকায় ওঠার আগেই আমরা ধরে ফেলেছি, মূলত পাড়ে। আমরা তাকে অনুসরণ করছি বিভিন্ন জায়গায়। সে ঘনঘন তার অবস্থান পরিবর্তন করছিল।

ওই কর্মকর্তা বলেন, তিনি তার চুলের রঙ চেঞ্জ করেছেন, গোঁফ কেটে ফেলেছেন। তার চুল সাধারণত সাদা থাকে, সেটা কালো করে ফেলেছেন। তার প্ল্যান ছিল মাথা ন্যাড়া করার। তিনি ইন্ডিয়াতে গেলে হয়তো করতেন।

এই র্যাব কর্মকর্তা জানান, নৌকার যে মাঝি শাহেদকে নদী পার হতে সহযোগিতা করছিল, সে পালিয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ওই মাঝি আসলে খুব ভালো সাঁতার জানেন। উপস্থিতি টের পেয়ে তিনি সাঁতরিয়ে চলে গেছেন। তিনি (শাহেদ) মোটা মানুষ সেজন্য হয়তো সে পালাতে পারেননি। সেজন্যই তিনি (শাহেদ) ধরা পড়েছেন।’

বিতর্কিত ব্যবসায়ী শাহেদ এই সাতক্ষীরারই ছেলে। গত ৬ ও ৭ জুলাই উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতাল এবং রিজেন্ট গ্রুপের প্রধান দপ্তরে র‌্যাবের অভিযানের পর থেকে তিনি লাপাত্তা ছিলেন।

রিজেন্ট হাসপাতাল ও গ্রুপের চেয়ারম্যান ও এমডিসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। প্রতারণার মামলায় এর আগে আরও ১০ জনকে আটক করা হয়েছে।

kutubdianews

দৈনিক কুতুবদিয়া নিউজ সর্বস্তরের খবর অনুসন্ধানে সত্য তুলে ধরবো আমরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: