করোনার মধ্যেই ভয়াবহ বন্যার কবলে ইতালি

প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে দক্ষিণ ইতালির সিসিলি প্রদেশের রাজধানী পালেরমোতে ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। বুধবার (১৫ জুলাই) দিবাগত রাত থেকে শুরু হয়ে বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) দুপুর পর্যন্ত চলে এই বৃষ্টিপাত।

ব্যাপক মাত্রায় বৃষ্টির পর স্থানীয় মেয়র জানান, ১৯৯০ সালের পর দেশে এবার সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এতে শহরের কেন্দ্রস্থলের অনেক অংশ নিমজ্জিত হয়ে প্রবল খরস্রোত সৃষ্টি হয়; যা শত শত গাড়িকে ভাসিয়ে নিয়ে গেছে।

এ দিকে বন্যার সময় ডুবে যাওয়ার আশঙ্কার মধ্যেই দুর্গতদের উদ্ধারে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস ও ফায়ার ফাইটার। প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে স্থানীয় গণমাধ্যম প্রাথমিকভাবে জানিয়েছে, বন্যায় আন্ডারপাসে এক দম্পতি গাড়িতে আটকা পড়ে। যদিও পুলিশ বাহিনীর দাবি, ওই অঞ্চলে এখনো কোনো লোক নিখোঁজের খবর পাওয়া যায়নি।

অপর দিকে দমকলকর্মীরা নিশ্চিত করেছেন যে, তারা বন্যার পানি বের করে দেওয়ার সময় আন্ডারপাসের ভেতরে নিখোঁজ লোকদের সন্ধান চালান।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, লোকজন বর্ষার ঝড়ের কবলে পড়ে তাদের নিমজ্জিত যানবাহন ছেড়ে দিয়ে পানিতে সাঁতার কাটছিলেন। সে সময় রিসাইক্লিং বিন এবং অন্যান্য জিনিসপত্র বন্যার পানিতে ভেসে যেতে দেখা যায়।

গণমাধ্যমে শহরের মেয়র অরল্যান্ডো বলেন, এ ধরনের বৃষ্টিপাতে শহরটির কোনো সতর্কতা ছিল না এবং নাগরিক সুরক্ষা সংস্থা এই অঞ্চলের জন্য কোনো আবহাওয়ার সতর্কতা জারিও করা হয়নি।

স্থানীয় মেয়র আরও বলেন, যদি শহরটিতে আগাম সতর্কতা জানানো হতো। তাহলে সাধারণ মানুষ ঝুঁকিগুলোকে সহজেই হ্রাস করতে পারত।

উল্লেখ্য, পালেরমোতে বেশ কয়েক হাজার বাংলাদেশি বসবাস করেন। বাংলাদেশি কমিউনিটি ব্যক্তিদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এবারের বন্যায় এখন পর্যন্ত কোনো বাংলাদেশি আহত বা হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

kutubdianews

দৈনিক কুতুবদিয়া নিউজ সর্বস্তরের খবর অনুসন্ধানে সত্য তুলে ধরবো আমরা

Leave a Reply

x
%d bloggers like this: