ইটভাটায় কাজে গিয়ে লাশ হলো ১০ বছরের শিশু

অনলাইন রিপোর্টার: মোঃ নুরুল হোসেন।

ইটভাটায় কাজে গিয়ে জাহিদুল ইসলাম নামের ১০ বছর বয়সী এক শিশু মাত্র ১৫ দিনের ব্যবধানে লাশ হয়ে পরিবারের কাছে ফিরেছে। কুমিল্লা জেলার চান্দিনা উপজেলার রামনগর এলাকার ইটের ভাটায় কাজ করতে যায় সে। সোমবার দুপুরে তার মৃত্যু হয়। সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার জয়নগর গ্রামের হামজার আলী আর মোমেনা দম্পতির একমাত্র ছেলে ছিল জাহিদ।

জয়নগর গ্রামের আকবর আলী, আব্দুল হকসহ কয়েকজন জানান, জাহিদুল ইসলামের বাবা সহায়-সম্বলহীন হামজার আলী একজন অসুস্থ বাকপ্রতিবন্ধী। তার মা মোমেনা বেগম মানসিক ভারসাম্যহীন হয়েও ভিক্ষা করে সংসার চালান। তারা আরও জানান, অভাবের সংসারে ঠিকমতো খাওয়া না জোটায় স্থানীয় শ্রমিক সর্দার রবিউল ইসলামের প্রস্তাব মেনে দুই সপ্তাহ আগে জাহিদুলকে তার হাতে তুলে দেয় পরিবার। স্থানীয়রা জানান, কর্মস্থলে মাটি ভেজানোর কাজে ব্যবহূত মোটরের তারে জড়িয়ে বিদ্যুৎস্পর্শে ঘটনাস্থলে জাহিদুলের মৃত্যু হয় বলে তারা জেনেছেন।

নিহত শিশুর খালা সফুরুন্নেছা বেগম জানান, অভাবের কারণে ঠিকমতো খাওয়া জোটে না। বাধ্য হয়ে ৩০ হাজার টাকা চুক্তিতে জাহিদকে তুলে দেওয়া হয় রবিউলের হাতে। সোমবার দুপুর ১টার দিকে কুমিল্লা থেকে মোবাইল ফোনে শ্রমিক সর্দার রবিউল তাদের জাহিদুলের মৃত্যুর খবর দেন।

জাহিদুল ইসলামকে ইটের ভাটায় নেওয়া শ্রমিক সর্দার রবিউল ইসলাম জানান, জাহিদদের পরিবার চরম অভাবে দিন কাটাচ্ছিল। তাই নিজ ছেলে রাকিবের সঙ্গে জাহিদুলকেও কুমিল্লায় ইটের ভাটায় নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনায় মৃত্যু হলেও স্থানীয়দের অনুরোধে জাহিদের পরিবারকে এক লাখ টাকা দিতে সম্মত হয়েছেন তিনি। থানার ওসি নাজমুল হুদা জানান, এ ব্যাপারে তিনি অভিযোগ পাননি।

kutubdianews

দৈনিক কুতুবদিয়া নিউজ সর্বস্তরের খবর অনুসন্ধানে সত্য তুলে ধরবো আমরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: