ইউএনও’র বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারদের ঝাড়ু মিছিল

জামালপুর থেকে: সাজ্জাদুল আলম শাওন।

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা ঝাড়ু মিছিল করেছে। মরহুম সাজু শেখ নামের এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বীর নিবাস প্রকল্পের বরাদ্দকৃত ঘর স্থগিত করায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওই মুক্তিযোদ্ধা পরিবার রবিবার সকালে ঝাড়ু মিছিলটি বের করে। মিছিলটি দেওয়ানগঞ্জ পৌর শহরের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা চত্বরে এসে কয়েক ঘন্টা অবস্থান করেন। পরে থানা পুলিশ ঘটনাস্থালে এসে আন্দোলনকারীদের সাথে আলাপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

দেওয়ানগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর উপহার অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্যে বীর নিবাস প্রকল্পের আওতায় ১২টি ঘর বরাদ্দ হয়। তার মধ্যে ৯টি বীর নিবাস প্রকল্পের ঘর অনুমোদন হয়। প্রকল্পের বাকী ৩টি নিবাস স্থগিত করেন উপজেল প্রশাসন। তার মধ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা সাজু শেখের বীর নিবাসও স্থগিত হয়। এ কারণে ওই মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ক্ষুদ্ধ হয়ে এ ঝাড়–মিছিল বের করে। জানা যায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাজুর বীর নিবাস তালিকাভূক্ত হওয়ায় তার পরিবার মাটি কেটে ভিটি উঁচু করে। ভিটির মাটি ধসে যাওয়া রোধে তারা গাইড ওয়ালও নির্মাণ করেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা সাজুর পরিবারের সদস্যরা জানান, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাজু শেখের নামে বরাদ্দকৃত ঘরটি ইউএনও বাতিল করেছেন। ঘর দেওয়ার নামে ইউএনও দুই লক্ষ টাকা চাইলে তারা সে টাকা দিতে অস্বীকার করেন। এ কারণে প্রকল্প থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধা সাজুর নামের ঘরটি বাতিল করা হয়েছে। অন্যদিকে ইউএনও টাকা দাবি করার কথা অস্বীকার করেন এবং বিষয়টিকে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ষড়যন্ত্র বলে জানান।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এনামুল হক মুঠোফোনে জানান, জায়গার সমস্যার কারণে বরাদ্দটি স্থগিত রাখা হয়েছে। ঘর দেওয়া যাবে কি যাবেনা তা অধিকন্ত তদন্ত শেষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী ও বীর নিবাস বাস্তবায়ন কমিটির অন্যতম সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেন, বরাদ্দকৃত বীর নিবাসটি বাতিলের বিষয়টি সঠিক নয় স্থগিত করা হয়েছে। যাচাই বাছাই শেষে বিষয়টি সুরাহা করা হবে।

তাৎক্ষণিকভাবে সংবাদ সন্মেলন করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম আবদুল্লাহ বিন রশীদ তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ দ্ব্যর্থহীন কন্ঠে অস্বীকার করে বলেন, এসব অভিযোগ ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। একটি কুচক্রীমহল তাদেরকে আমার বিরুদ্ধে উসকিয়ে দিয়েছে। বীর নিবাস নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নে একটি পাঁচ সদস্যের কমিটিও আছে। কমিটির সকল সদস্যরা সরেজমিনে দেখেন, একজন মুক্তিযোদ্ধা ধনাঢ্য, আর দুজন মুক্তিযোদ্ধার জমির নতুন মাটি ও পাশে পুকুর। কমিটির সিদ্ধান্তে তিনটি ঘর নির্মাণের বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তাঁরা বলেছেন-ঝুঁকিপূর্ণ কোনো জমিতে ঘর নির্মাণ সম্ভব নয়। কারণ ঘর নির্মাণের পর ভেঙে বা ফেটে গেলে, সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়। ফলে মুক্তিযোদ্ধা সাজু শেখের ঘরসহ তিনটি বীর নিবাস নির্মাণ স্থগিত করা হয়েছে।

Copyright© by Kutubdia News

kutubdianews

দৈনিক কুতুবদিয়া নিউজ সর্বস্তরের খবর অনুসন্ধানে সত্য তুলে ধরবো আমরা

Leave a Reply

x
%d bloggers like this: